শনিবার ২৮শে নভেম্বর, ২০২০ ইং ১৩ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

Ad

সর্বশেষঃ

বাগেরহাটে ইউপি সচিবের বিরুদ্ধে দুর্ব্যবহার ও অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ…

আপডেটঃ ১০:২৫ অপরাহ্ণ | সেপ্টেম্বর ১১, ২০২০

সোহেল রানা বাবু, বাগেরহাট থেকেঃ বাগেরহাট জেলার কচুয়া সদর ইউনিয়ন ও গোপালপুর ইউনিয়নের ভারপ্রাপ্ত সচিব দেবাশীষ মল্লিকের বিরুদ্ধে সরকারী সম্পদ আত্মসাৎ, গ্রাম পুলিশদের হাজিরা খাতা আটকিয়ে রাখা, মানুষের সাথে দুর্ব্যবহার সহ নানাবিধ অভিযোগ উঠেছে। ইউপি সচিব দেবাশীষ মল্লিক বাগেরহাট সদর উপজেলার সাহসপুর গ্রামের জগদীশ মল্লিকের ছেলে। এ ব্যাপারে প্রতিকার চেয়ে স্থানীয় চেয়ারম্যানের কাছে অভিযোগ করেছেন কচুয়া সদর ইউনিয়ন পরিষদের ১০জন গ্রাম পুলিশ। অভিযোগে জানা যায়, উক্ত ইউপি সচিবকে স্যার না বলায় গ্রাম পুলিশদের হাজিরা খাতা দীর্ঘ কয়েক মাস যাবৎ আটকিয়ে রেখেছে। সরকারী সম্পদ আত্মসাৎ, সাধারন মানুষের সাথে দুর্ব্যবহার, অবৈধ ভাবে টাকা দাবী, সুবিধা দেবার কথা বলে সাধারন মানুষের কাছ থেকে ব্যাংকে হিসাব খুলিয়ে টাকা নেয়া ,অধিক টাকায় সিম কিনিয়ে দেওয়া, করোনা কালীন সরকারী-বেসরকারী ত্রান আত্মসাৎ,বয়স্ক, বিধবা ও প্রতিবন্ধিদের সাথে অসৌজন্যমূলক আচরন করা,সঠিক সময়ে অফিসে হাজিরা না দেওয়া, জন্মনিবন্ধনের জন্য তাকে ৫০টাকা না দিলে নিবন্ধন ফরমে স্বাক্ষর না করা ছাড়াও অভিযোগ রয়েছে গোপালপুর ইউনিয়নে অতিরিক্ত দায়িত্ব পালনের সুযোগে সম্প্রতি সাবেক একজন বৃদ্ধ ইউপি সদস্য তাকে কেরানী বাবু বলায় বৃদ্ধ সদস্যকে গালমন্দ করে তার রুম থেকে দেওয়ার । এর আগে কচুয়া উপজেলার মঘিয়া ইউনিয়ন পরিষদের সচিব থাকাকালীন সময় তার বিরুদ্ধে নানা রকম অনিয়মের অভিযোগ ওঠে। পরে কচুয়া সদর ইউনিয়নে বদলি হলে মঘিয়া ইউনিয়নের চোকিদার,দফাদারসহ সাধারন ভুক্তভোগীরা খুশিতে মিষ্টি বিতরন করেছিল। এব্যাপারে ইউপি সচিব দেবাশীষ মল্লিক এর সাথে ০১৭১৭-২৪৯০১২ নম্বরে যোগাযোগ করা হলে তাকে পাওয়া যায়নি। এ বিষয়ে কচুয়া সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শিকদার হাদিউজ্জামান হাদিজ বলেন, আমি বর্তমানে করোনা আক্রান্ত হয়ে হোম আইসোলেশনে আছি। গ্রাম পুলিশদের দেয়া অভিযোগ পেয়ে অভিযোগটি জেলা প্রশাসকের কাছে পাঠিয়ে দিয়েছি। তিনি এখন ব্যবস্থা নিবেন বলে আশা করছি। কচুয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার সুজিৎ দেবনাথ বলেন ,এ বিষয়টি আমি শুনেছি এবং তদন্তপূর্বক উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের অনুমতিতে ব্যবস্থা নেয়া হবে। এ ব্যাপারে স্থানীয় ভুক্তভোগীরা ইউপি সচিব দেবাশীষ মল্লিকের বিরুদ্ধে তদন্ত পুর্বক ব্যাবস্থা গ্রহন সহ দ্রুত তাকে এই পদ থেকে অপসারনের জোর দাবী জানান।