শুক্রবার ২৭শে নভেম্বর, ২০২০ ইং ১২ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

Ad

সর্বশেষঃ

উত্তরায় ক্রিসেন্ট হাসপাতালে র‌্যাবের অভিযান, ১৭ লাখ টাকা জরিমানা. তিন জনের বিভিন্ন মেয়াদে কারাদন্ড.

আপডেটঃ ৪:০৮ অপরাহ্ণ | নভেম্বর ০৫, ২০২০

এস,এম,মনির হোসেন জীবন : বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগে রাজধানীর উত্তরা পশ্চিম থানার ৩ নম্বর সেক্টর ১৫ নম্বর সড়কে অবস্থিত ক্রিসেন্ট ডায়াগনস্টিক এন্ড কনসালটেশন সেন্টারসহ দু’টি ওষুধ ফার্সেসিতে অভিযান চালিয়েছে র‍্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত ।
র‍্যাবের অভিযানকালে বিভিন্ন অনিয়মের কারণে প্রতিষ্ঠানটিকে সর্বমোট ১৭ লাখ টাকা জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত।
র‍্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট পলাশ কুমার বসু বৃহস্পতিবার অভিযানের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
তিনি জানান, অভিযানকালে মেয়াদোত্তীর্ণ রিঅ্যাজেন্ট দিয়ে বিভিন্ন পরীক্ষা করানোর অপরাধে প্রথমে ক্রিসেন্ট ডায়াগনস্টিক এন্ড কনসালটেশন সেন্টারের ল্যাব ইনচার্জ নয়ন রায়কে ১০ লাখ টাকা জরিমানা অনাদায়ে তিন মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেয়া হয়।
এছাড়া, মেয়াদোত্তীর্ণ ও অনুনোমদিত ওষুধ রাখার অপরাধে ফার্মেসির ম্যানেজার শামসুজ্জোহাকে পাঁচ লাখ টাকা ও সেলসম্যান হাবিবুর রহমানকে দুই লাখ টাকা জরিমানা ও অনাদায়ে তিন মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করা হয়।
এলিট ফোর্স র‍্যাব-১, স্বাস্থ্য অধিদপ্তর ও ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তরের সহযোগিতায় র‍্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট পলাশ কুমার বসুর নেতৃত্বে বুধবার দিবাগত রাত ৮টার দিকে একযোগে এই অভিযান শুরু করা হয়। অভিযান মধ্যরাত পর্যন্ত একটানা চলে।
মেয়াদ উত্তীর্ণ ওষুধ রাখা, ডাক্তার ছাড়া ও অনভিজ্ঞ স্টাফ দিয়ে অস্ত্রোপচারের অভিযোগসহ এক নবজাতকের মৃত্যুর অভিযোগ করেছেন তার পরিবার।
অভিযান শেষে র‍্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট পলাশ কুমার বসু সাংবাদিকদেরকে জানান, ক্রিসেন্ট ডায়াগনস্টিক এন্ড কনসালটেশন সেন্টারে চিকিৎসক ছাড়াই এক মায়ের অস্ত্রোপচারের ফলে নবজাতক মারা গেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। পরে ভুক্তভোগী পরিবারকে নিয়মিত আইনে মামলা দায়েরের পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।
তিনি আরো জানান, এছাড়া মেয়াদোত্তীর্ণ রিঅ্যাজেন্ট দিয়ে বিভিন্ন পরীক্ষা করানোর অপরাধে প্রথমে ক্রিসেন্ট ডায়াগনস্টিক এন্ড কনসালটেশন সেন্টারের ল্যাব ইনচার্জ নয়ন রায়কে ১০ লাখ টাকা জরিমানা অনাদায়ে তিন মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেয়া হয়।
ম্যাজিস্ট্রেট পলাশ কুমার বসু জানান, এর বাইরে প্রতিষ্ঠানটির ক্রিসেন্ট ফার্মেসি-১ ও ২ এ মেয়াদোত্তীর্ণ ও অনুনোমদিত ওষুধ পাওয়া গেছে। এমনকি কোনও ফার্মাসিস্ট পাওয়া যায়নি। এ অপরাধে ফার্মেসির ম্যানেজার শামসুজ্জোহাকে পাঁচ লাখ টাকা ও সেলসম্যান হাবিবুর রহমানকে দুই লাখ টাকা জরিমানা ও অনাদায়ে তিন মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করা হয়।