মঙ্গলবার ১৫ই জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ১লা আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

Ad

সর্বশেষঃ

কাপাসিয়ায় সংঘবদ্ধ ভাবে গৃহবধূকে ধর্ষণ-আটক …৭

আপডেটঃ ২:১৬ অপরাহ্ণ | ডিসেম্বর ২০, ২০২০

স্টাফ রির্পোটার : গাজীপুরের কাপাসিয়ায় রোজিনা আক্তার (২২) নামে এক গৃহবধূ সঙ্ঘবদ্ধ ধর্ষণের শিকার হয়েছেন। বৃহষ্পতিবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে উপজেলার নবীপুর নরাইদ্দারটেক এলাকার কড়ই গাছের নিচে এ ঘটনা ঘটে। এতে অভিযুক্ত সাত যুবককে আটক করেছেন কাপাসিয়া থানা পুলিশ। আটককৃত সকলেই উপজেলার তরগাঁও এলাকার বাদল মোড়লের ছেলে মহফুজুল হক (২০), এহসান মোড়লের ছেলে মাহবুবুল হোসেন শাকিব (২২), মোস্তফা বেপারীর ছেলে রোমান বেপারী (২০), মৃত ছফুর উদ্দিনের ছেলে মাসুম শেখ(২১), শামসুল হকের ছেলে রাকিব হোসেন (২০), মহসীনের ছেলে জোবায়ের (২১), মফিজ উদ্দিন সর্দারের ছেলে মোস্তারীন সর্দার (২১)। প্রধান অভিযুক্ত কাপাসিয়ার চর খামের গ্রামের আইনুদ্দীনের ছেলে সাখাওয়াত পলাতক রয়েছে। কাপাসিয়া থানার কর্তব্যরত কর্মকর্তা উপ পরিদর্শক (এসআই) আমিনুল ইসলাম আটককৃতদের সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, কাপাসিয়ার চর খামের গ্রামের আইনুদ্দীনের ছেলে সাখাওয়াত হোসেনের সাথে নবীপুর গ্রামের জেসমিন আক্তারের মেয়ে ভিকটিম রোজিনা আক্তারের মোবাইলে নিয়মিত কথা-বার্তা হত। ওই পরিচয়ের জেরে বৃহষ্পতিবার রাতে সাখাওয়াত রোজিনাকে একটি মোবাইল ফোন দেয়ার কথা বলে বাড়ির বাহিরে যেতে বলে। পরে সে বাড়ির পাশে নরাইদ্দারটেক কড়ই তলায় যায়। সেখানে সাখাওয়াতসহ অভিযুক্তরা রোজিনাকে ধর্ষণ করে। তার স্বামীর বাড়ি নরসিংদী জেলার মনোহরদী উপজেলায়। সে এক সন্তানের জননী ও তার স্বামী সোহেল রানা প্রবাসী। সে ওইদিন তার বাবার বাড়ি কাপাসিয়া আসেন। কালীগঞ্জ সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার ফারজানা ইয়াসমিন জানান, গৃহবধূ সঙ্ঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগটি সঠিক। অভিযুক্তদের আটক করা হয়েছে। মামলাও হয়েছে। ভিকটিম রোজিনার স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দিন আহমদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।