মঙ্গলবার ১৫ই জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ১লা আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

Ad

সর্বশেষঃ

শ্যামপুর সুগার মিল পুলিশি বাঁধা উপেক্ষা করে আধা বেলা হরতাল পালন দাবি আদায় না হলে আমরণ কর্মসূচি…

আপডেটঃ ৮:০৬ অপরাহ্ণ | ডিসেম্বর ২৩, ২০২০

ময়দুল ইসলাম, বদরগঞ্জ(রংপুর)প্রতিনিধিঃ- চিনিকল বন্ধের সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে পুলিশি বাঁধা উপেক্ষা করে রংপুরের বদরগঞ্জ শ্যামপুর সুগারমিল এলাকায় আধাবেলা হরতাল পালন করা হয়েছে। শতশত শ্রমিক-কর্মচারি ও আখ চাষিদের বিক্ষোভ মিছিল ঠেকানোর চেষ্টা করা হলে পুলিশ ও শ্রমিক-কর্মচারিদের মধ্যে উত্তপ্ত পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়। এর আগে শীত উপেক্ষা করে হরতালের সমর্থনে গতকাল বুধবার সকাল থেকে শ্রমিকরা মিলগেটে জড়ো হয়। এসময় শতশত শ্রমিক দাবি আদায়ের দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল করেন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে সুগারমিল এলাকার চারটি পয়েন্টে চার প্লাটুন অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়। এসময় নারী-পুরুষরা পুলিশের বাধা ভেঙে শ্যামপুর বাজার এলাকায় যেতে চাইলে তাদের বাধা দেওয়া চেষ্টা চালানো হয়। কিন্তু শ্রমিকরা বাধা উপেক্ষা করে মিল এলাকায় মিছিল নিয়ে বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন। হরতাল শেষে দাবি আদায়ের জন্য মিলগেটে এক সমাবেশ থেকে আমরণ অনশনের কর্মসুচি ঘোষণা করা হয়।

জানা যায়, দেশের অপর ৫টি সুগার মিলের সঙ্গে রংপুরের বদরগঞ্জ উপজেলার শ্যামপুর সুগার মিলটিও বন্ধ ঘোষণা করা হয়। এর প্রতিবাদে মিলের প্রায় সাড়ে সাত শত শ্রমিক-কর্মচারি বেকার হয়ে পড়ার আশঙ্কায় আন্দোলনে নামেন। এর ধারাবাহিকতায় আন্দোলনের অংশ হিসেবে গতকাল সকাল ৬টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত মিল এলাকার আশপাশে সকল দোকানপাট ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে হরতাল পালন করা হয়। শ্রমিকরা রেললাইন অবরোধ করতে গেলে পুলিশি বাধায় তা প- করে দেওয়া হয়। এসময় মিছিল নিয়ে শ্রমিকরা মিল চত্ত্বর, শামপুর বাজার, বন্দর ও রেলস্টেশন এলাকায় বিক্ষোভ মিছিল করেন। মিছিলের নেতৃত্ব দেন অ্যামপ্লয়িজ ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক বুলু আমীন। এক সংক্ষিপ্ত সমাবেশে বক্তব্য দেন, শ্রমিক নেতা সুলতান মাহমুদ, সালাম ম-ল, আবু সুফিয়ান, মেহেদী হাসান সাগর প্রমুখ। শ্রমিকরা শ্লোগান তোলেন, সুগার মিল বন্ধ কেন প্রশাসন জবাব দে।’

অ্যামপ্লয়িজ ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক বুলু আমীন বলেন, ‘পুলিশ আমাদের মহিলা শ্রমিকদের ওপর হামলার চেষ্টা চালায়। শান্তিপূর্ণ কর্মসুচিতে পুলিশ অহেতুক বাধা দিয়ে বিশৃংখলার তৈরির চেষ্টা চালায়। তিনি আরো বলেন, সুগারমিল আধুনিকায়নের অজুহাতে শ্রমিক-কর্মচারিদের চাকুরিচ্যুত করার ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে। একবিন্দু রক্ত থাকতে মিলবন্ধের সকল ষড়যন্ত্র প্রতিহত করা হবে। অতিদ্রুত সময়ের মধ্যে মিল চালু না হলে শ্রমিক-কর্মচারিদের নিয়ে মিলগেটে সাদা কাপড় পরে আমরণ অনশন কর্মসুচি পালন করা হবে বলে জানান তিনি।’
বদরগঞ্জ থানার ওসি (ভারপ্রাপ্ত) আরিফ আলী বলেন, শ্রমিকদের মিছিলে বাধা দেওয়া হয়নি। কিছু শ্রমিক বিশৃংখলা সৃষ্টির চেষ্টা করলে পুলিশ তাদের বাধা দেয়।
রংপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মারুফ আহম্মেদ বলেন, সুগারমিল এলাকার ভেতরে শান্তিপূর্ণভাবে শ্রমিক-কর্মচারিরা মিছিল করেছে। আইনশৃংখলা পরিস্থিতি যাতে অবনতি না হয় সে কারণে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছিল।
শ্যামপুর সুগারমিলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) দীলিপ কুমার সরকার কালের কণ্ঠ বলেন, ‘শ্রমিকরা শান্তিপুর্ণভাবে তাদের দাবি আদায়ে কর্মসুচি পালন করেছে। এতে বাধা সৃষ্টি করা হয়নি। তাদের দাবি আদায়ের বিষয়গুলো তাৎক্ষণিকভাবে যথাযথ কর্তৃপক্ষকে অবগত করা হয়েছে।