বুধবার ২৮শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ১৩ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

Ad

সর্বশেষঃ

গাইবান্ধায় তিস্তার নাব্য সংকটে ,প্রায় বন্ধ নৌ পথ …

আপডেটঃ ৭:৪৬ অপরাহ্ণ | জানুয়ারি ১৩, ২০২১

গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি: তিস্তা নদীর নাব্য সংকটে বিভিন্ন রুটে নৌ-চলাচল প্রায় বন্ধ হয়েছে। শুকনা মৌসুমে নদীপথ পাড়ি দিতে সীমাহীন দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে নৌ পথের যাত্রীদের। নাব্য সংকটের কারণে হাজারও নৌ-শ্রমিক বেকার হয়ে পড়েছে। মানবেতর জীবন-যাপন করছেন নৌ-শ্রমিকরা। অনেকে বাধ্য হয়ে জীবন-জীবিকা নির্বাহের জন্য বাপ-দাদার পেশা ছেড়ে অন্য পেশা বেছে নিচ্ছে। তিস্তা নদীতে পানি না থাকায় পরিবেশের ভারসাম্য নষ্ট হচ্ছে। হারিয়ে যেতে বসেছে নদীতে বসবাসরত বিভিন্ন প্রাণিকুল।উজান থেকে নেমে আসা পলি জমে রাক্ষুসি তিস্তা নদী ভরাট হয়ে ধূ-ধূ বালুচর আর ফসলী জমিতে পরিণত হয়েছে। তিস্তার গতিপথ পরিবর্তন হয়ে অসংখ্য খাল ও শাখা নদীতে রূপ নিয়েছে। শুকনা মৌসুমে নদীপথে চলাচল অত্যন্ত দুরূহ হয়ে দাঁড়িয়েছে। চরাঞ্চলে চলাচলের একমাত্র মাধ্যম হচ্ছে পায়ে হেঁটে, ঘোড়ার গাড়ি। নৌ শ্রমিকরা বাপ-দাদার পেশা ছেড়ে দিয়ে রিক্সা, ভ্যান, ব্যাটারি অটোবাইক, রাজমিস্ত্রি ও বিভিন্ন কলকারখানায় দিনমজুরের কাজ করছেন। হারিয়ে যাচ্ছে বিভিন্ন প্রজাতির মাছ, পাখিসহ ঐতিহ্যবাহী প্রাণিকুল। এ কারণে পরিবেশের ভারসাম্য নষ্ট হচ্ছে। বন্ধ হয়ে গেছে নৌ-পথের ব্যবসা-বাণিজ্য। জেলে সত্য বাবু বলেন নদীতে আর আগের মতো মাছ পাওয়া যায় না। মুল নদী এখন নালা আর খালে রূপ নিয়েছে। সারাদিন বিভিন্ন শাখা নদীতে মাছ ধরে বিক্রি করে, যা আয় হয় তা দিয়ে সংসার চলে না।