সোমবার ১০ই মে, ২০২১ ইং ২৭শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

Ad

মিঠাপুকুরে আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আলোচনায় তুঙ্গে চেয়ারম্যান প্রার্থী সাহেব সরকার..

আপডেটঃ ১০:৫১ অপরাহ্ণ | ফেব্রুয়ারি ২৮, ২০২১

মিঠাপুকুর রংপুর প্রতিনিধি : মিঠাপুকুর উপজেলার আসন্ন ১১নং বড়বালা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে আলোচনায় তুঙ্গে উপজেলার আওয়ামীলীগের ইউনিয়ন সভাপতি সাহেব সরকার। সাহেব সরকার, পিতাঃ ফজলার রহমান, গ্রামঃ তরফ বাহাদী, মিঠাপুকুর রংপুর। ২০০৪ সাল থেকে অদ্যবতী আওয়ামীলীগের ইউনিয়ন সভাপতি হিসেবে বহাল আছেন। ২০১৬ সালে নৌকা প্রতীক পেয়ে ১১ নং বড়বালা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে জয়লাভ করেন। তিনি জনগণের সেবায় সর্বদা নিয়োজিত। আগামী নির্বাচনে নৌকা প্রতীকের দাবিদার হিসেবে তিনি একমাত্র ব্যক্তি এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে আকুল আবেদন জানাচ্ছি।
দীঘদিন যাবত বিভিন্নভাবে সামাজিক ও মানবিক সংগঠনের সাথে কাজ করে আসছে। এলাকার উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ডে অংশীদারিত্ব অপরিসীম। উপজেলার বিভিন্ন রাজনৈতিক সংগঠনের দায়িত্ব পালন করে আসছে।
আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে ঘিরে এলাকার সাধারণ জনগণের মুখে একটি নামেই আলোচনায় আসছে। তার শিক্ষাগত যোগ্যতার দিক বিবেচনা করলেই আসন্ন নির্বাচনকে ঘিরে সাধারণ মানুষের মুখে একটি নাম সাহেব সরকার । ছাত্র জীবনে সাধারণ মানুষের পাশে দাঁড়াতে এগিয়ে আসতেন তিনি। এলাকায় অসহায় ও প্রতিবন্ধিদের সহযোগীতার হাত বাড়ান। বিভিন্ন সময়ে প্রতিবন্ধিদের মাঝে হুয়িল চেয়ার বিতরণ করেন। ব্যক্তি জীবনে তিনি নিরলস পরিশ্রমি। আওয়ামীলীগ ও ছাত্রলীগের বিভিন্ন সময়ে মিছিল মিটিংয়ে অংশ গ্রহণ করে আসছেন। বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও দেশরত্ন শেখ হাসিনার দিক নির্দেশনায় সব সময় সাধারণ জনগণের পাশে ছিলেন।
ছড়ান বাজারের রাকিবুল ইসলাম জানান, ব্যক্তি হিসাবে সাহেব সরকার যোগ্য প্রার্থী তাকে সবাই ভালোবাসেন ও শ্রদ্ধা করেন। আসন্ন নির্বাচনকে ঘিরে চায়ের দোকানে পাড়ায় ও মহল্লায় আলোচনায় ঝড় উঠেছে। সবার একটি কথা সৎ যোগ্য প্রার্থী গরীব মানুষের পাশে দাড়াবে এমন একজন ব্যক্তির প্রয়োজন। আজ আমাদের দেশ স্বাধীন হয়েছে। তাই দেশের অগ্রগতি দেশকে সুষ্ঠ এবং সুন্দরভাবে গড়ে তোলা এবং পরিচালনার জন্য সমাজকে তৈরী হতে হবে।
গ্রামের মানুষের শিক্ষা দীক্ষার অবকাঠামোর মাধ্যমে জাগিয়ে তুলে তাদের জীবন মান উন্নত করাই তার কাজ। তাদের দুঃখ দুর্দশা ক্ষুধা দারিদ্রতা থেকে মুক্তি দিয়ে স্বনির্ভর করে তুলতে হবে। তাই এলাকার মূল নীতি অবলম্বন করে। উন্নয়নের দায়িত্ব পালন করাই তার প্রধান লক্ষ।