মঙ্গলবার ১১ই মে, ২০২১ ইং ২৮শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

Ad

সর্বশেষঃ

গাজীপুরের টঙ্গীতে ছিনতাইকারীদের দৌরাত্ম্য বৃদ্ধি..

আপডেটঃ ৭:০২ অপরাহ্ণ | মার্চ ০৮, ২০২১

নিজস্ব প্রতিনিধি -:চ্যানেল সেভেন -: টঙ্গীতে হরহামেশা প্রতিদিন চুরি, ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটেই চলছে। টঙ্গীর ট্রানজিস্ট পয়েন্ট 55 নং ওয়ার্ডের, প্রতিটি রাস্তার মোড়ে মোড়ে এসব অনৈতিক ঘটনা নিত্ত নৈমিত্তিক   যেন দেখার কেউ নেই। সন্ধ্যা হতে  গভীর রাত পর্যন্ত চলছে ছিনতাইয়ের ঘটনা। কেউ চিনলেও ভয়ে মুখ খুলছে না ছিনতাইকারীদের। একটু গভীরে গেলে জানা যায়, 55 নং ওয়ার্ডের, স্টেশন রোড, মাসিমপুর, মিলগেট, সোনালী রোড ,তালতলা রোড, মেঘনা রোড, তুসুকা  রোড, দেওরা  রোড, টোবাকো রোড, অলিম্পিয়া মসজিদ রোড, ইজতেমার মাঠের পাশের রাস্তা, শ্রমকল্যাণ রোড, নিশাত মহলা বস্তি, জিন্নাত বস্তি, চুরি ফ্যাক্টরির বস্তি, মেডিকেল এর পিছনের বস্তি, তিতাস গ্যাস রোড, পুবাইল রোড  হতে দুলাল কমিশনারের রোড,মহল্লার প্রায় প্রতিটি রাস্তায় 300 থেকে 400 বাতি টঙ্গী পৌরসভা  কর্তৃক  লাইন লাগানোর কথা থাকলেও বাস্তবে কোন বাতি খুঁজে পাওয়া যায় নি। অনুসন্ধানে দেখা যায় যে, সংবদ্ধ ভাবে চোর ,ছিনতাইকারীরা ঘুরে বেড়ালেও রাতের অন্ধকার নেমে আসলেই শুরু হয়ে যায় তাদের অনৈতিক কর্মকান্ড। ভুক্তভোগীরা জানান, চলাচলরত  বিভিন্ন পথচারী, গাড়ির ড্রাইভার, স্থায়ী ,অস্থায়ী কেউ রেহাই পাচ্ছেনা ছিনতাইকারীদের হাত থেকে। ঘাপটি মেরে থাকা সুযোগ বুঝেই এসব ছিনতাইকারীরা সব কেড়ে নিচ্ছে সকলের কাছ থেকে। স্বেচ্ছায় কেউ কিছু না দিলে মেরে ফেলা হচ্ছে অনেকেই। 55 নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আবুল হাসেম জানান, 300 হতে চারশত লাইট  প্রয়োজন। আমাকে দিয়েছে মাত্র 130 টা। আমি কি করবো। তিনি আরো জানান, প্রতি মাসের 8 থেকে 10 তারিখে,সংবদ্ধ ভাবে প্রতিটি গার্মেন্টস কর্মীদের কাছ থেকে ছিনিয়ে নিচ্ছে সকলের বেতনের টাকা ছিনতাইকারীরা। বাতিগুলো লাগাতে পারলে এই সব কিছু হতো না। এসকল বিষয় নিয়ে আঞ্চলিক নিবার্হী কর্মকর্তা টঙ্গী zone-1 এর, জনাব এস এম সোহরাব হোসেনের কাছে, মুঠোফোনের মাধ্যমে জানতে চাইলে, তিনি জানান, কাজ চলছে, কাজ চলবে, বাতি আসবে।গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর আলমের দৃষ্টি আকর্ষণ করে, 55 নং ওয়ার্ড এলাকাবাসীর সকলের প্রাণের দাবি, অতি সত্বর প্রতিটি রাস্তার পাড়া-মহল্লায়, পৌরসভা কর্তৃক বাতির ব্যবস্থা হলে, একদিকে মানুষের বাজবে প্রাণ অন্যদিকে আলোয় আলোকিত হয়ে উঠবে টঙ্গীর প্রতিটি রাস্তা। এমনটাই দাবি সকলের।