সোমবার ১০ই মে, ২০২১ ইং ২৭শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

Ad

একদিকে পুলিশের বেধড়ক মার…অন্যদিকে চাঁদাবাজ-সন্ত্রাসীদের মার, ও পুলিশের হামলায় আতঙ্কে, দিশেহারা- ….টঙ্গীর ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা

আপডেটঃ ৩:৩৩ অপরাহ্ণ | মে ০২, ২০২১

Samima Khanam-:channel7bd.com- একদিকে পুলিশের বেধড়ক মার। অন্যদিকে চাঁদাবাজ-সন্ত্রাসীদের মার, আতঙ্কে টঙ্গীর ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা। গত তিন সপ্তাহ ধরেই পুলিশ, স্থানীয় কাউন্সিলর, যুবলীগ পরিচয় কতিপয় নেতা, বাড়িওয়ালাদের চাঁদাবাজের দিশেহারা ব্যবসায়ীরা।
টঙ্গীর ঐতিহ্যবাহী সোনাভান খ্যাত টঙ্গী মার্কেটের পাশে অবস্থিত গরু হাটে, প্রতি সপ্তাহে একদিন রবিবার হাট বসে, গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের আঞ্চলিক নিবার্হী কর্মকর্তা এস এম সোহরাব হোসেনের নীরব ভূমিকায়, বাজার সম্পত্তি কর্মকর্তা শাওনের সখ্যতায়, সরকারি লিজ না নেওয়ার শর্তেও অবৈধভাবে চাঁদাবাজের দৌড়াতে জিম্মি এখন টঙ্গীর আশপাশের অসংখ্য ব্যবসায়ীরা।
কান্নার কন্ঠে অসংখ্য ব্যবসায়ীরা জানান, সন্ধ্যার পর থেকেই পুলিশের বেধড়ক মারপিট আমরা আহত হয়ে কয়েকজন  হাসপাতালে ভর্তি, অন্যদিকে চাঁদাবাজরা মরিয়া হয়ে আমাদেরকে পেটাচ্ছে,ঈদুল ফিতর উপলক্ষে, ৫০০ টাকার জায়গায় ইজারার নামে এক হাজার করে টাকা নিচ্ছে, গরু হাট এর প্রতিটি বাড়িওয়ালা নিচ্ছে ৩০০টাকা করে, হিজড়ারা নিচ্ছে ১০০, যুবলীগ, আওয়ামিলীগ’ পরিচয় নিচ্ছে ৫০০ টাকা করে। লাইট বিল ৫০ ঝাড়ুদার ৫০ আমরা পাগল হয়ে গেছি চাঁদাবাজদের এই সকল চাঁদা দিতে দিতে।এর কোন টাকার রশিদ দিচ্ছে না। চাইলে আমাদের কাছ থেকে মাল পত্র লুটপাট করে নিয়ে নিচ্ছে।আমরা এই সকল চাঁদাবাজদের কাছ থেকে, পুলিশের মার খাওয়ার কাজ থেকে, চাঁদাবাজ বাড়িওয়ালাদের হাত থেকে, রেহাই পেতে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছি।স্থানীয় নেতা আমান সরকারের কাছে জানতে চাইলেন, তিনি বলেন আমরা সিটি কর্পোরেশনের কাছ থেকে কোনো লিখিত ইজারা পাইনি, পুলিশ কেন ব্যবসায়ীদের পেটাচ্ছে এ বিষয়ে আমরা কিছু বলতে পারব না ।