মঙ্গলবার ১৫ই জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ১লা আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

Ad

সর্বশেষঃ

দিনাজপুর জেলায় বীরগঞ্জ উপজেলায় চার হাত ও চার পা নিয়ে শিশু জন্মগ্রহন করেন……….

আপডেটঃ ৭:২২ অপরাহ্ণ | জুন ০৭, ২০২১

মোঃ শাকিল- শিশুটির চারটি হাত ও চারটি পা। জন্মের পর স্বাভাবিকভাবেই কান্নাকাটি করেছে। মায়ের দুধও পান করেছে। এ ঘটনা দিনাজপুরের বীরগঞ্জ উপজেলার। আজ শুক্রবার ভোর রাতে উপজেলার বীরগঞ্জ ক্লিনিক নামের একটি বেসরকারি হাসপাতালে শিশুটির জন্ম হয়।

ছেলে শিশুটির বাবার নাম গোলাম রব্বানী। তিনি কাহারোল উপজেলার মুকুন্দপুর ইউনিয়নের রামপুর গ্রামের বাসিন্দা। তিনি দিনমজুর কাজ করেন। শিশুসহ প্রসূতিকে ওই ক্লিনিক থেকে নিজ গ্রামে নেওয়া হয়েছে। এ দম্পতির ছয় বছরের একটি মেয়ে রয়েছে। নবজাতকটিকে দেখতে এলাকার লোকজন গোলাম রব্বানীর বাড়িতে ভিড় করছেন।

গোলাম রব্বানী বলেন, বৃহস্পতিবার রাতে খাওয়াদাওয়ার পর তাঁর স্ত্রীর প্রসব বেদনা ওঠে। একটি মাইক্রোবাসে করে উপজেলার বীরগঞ্জ ক্লিনিকে স্ত্রীকে নিয়ে যান তিনি। ক্লিনিকে সে সময় কোনো চিকিৎসক ছিলেন না। আজ ভোরে স্ত্রীর সন্তান প্রসব হয়। তাঁর সন্তানের চারটি হাত ও চারটি পা। শরীরের বাঁ পাশে কোমর ও পেটের মাঝামাঝি থেকে বাড়তি দুটি করে হাত-পা বের হয়েছে।

গোলাম রব্বানী আরও বলেন, তাঁর স্ত্রীর গর্ভকাল ৯ মাস পূর্ণ হয়েছিল। বর্তমানে স্ত্রী ও সন্তান ভালো আছে। ওই ক্লিনিকের চিকিৎসক  উন্নত চিকিৎসার জন্য রংপুর মেডিকেল হাসপাতালে নেওয়ার পরামর্শ দিয়েছিলেন। টাকা না থাকায় স্ত্রী ও সন্তানকে তিনি বাড়িতে নিয়ে এসেছেন।

শিশুটির বিষয়ে জানতে চাইলে জেলা সিভিল সার্জন আবদুল কুদ্দুস বলেন, অটিজম ও জিনগত কারণে এই ধরনের জন্মগত ত্রুটি হয়। এ ছাড়া গর্ভকালীন গর্ভনিরোধক পিল কিংবা চিকিৎসকের পরামর্শ ব্যতীত উচ্চমাত্রার অ্যান্টিবায়োটিক সেবন করলে এই ধরনের ঘটনা ঘটে। গর্ভাবস্থায় আলট্রাসনোগ্রাফিতে বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া যায়।

সিভিল সার্জন আরও বলেন, তিনি শিশুটির ছবি দেখেছেন। সার্জারি করে শিশুটিকে স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরিয়ে আনা সম্ভব হতে পারে।