শনিবার ১৯শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং ৪ঠা আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

Ad

সর্বশেষঃ

আ.লীগ মোদির কাছে মিথ্যা চিঠি দিয়েছে

আপডেটঃ ১০:১৫ অপরাহ্ণ | মে ২৮, ২০১৪

মুন্সীগঞ্জ থেকে: আওয়ামী লীগ মোদি সাহেবের (নরেন্দ্র মোদি) কাছে যে চিঠি দিয়েছে তাতে মিথ্যা লিখেছে বলে দাবি বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার।

তিনি বলেন, ‘আওয়ামী লীগ মোদি সাহেবের কাছে চিঠি দিয়ে লিখেছে, “আপনিও দুই তৃতীয়াংশ সংখ্যাগরিষ্টতা নিয়ে নির্বাচিত হয়েছেন, আমিও দুই তৃতীয়াংশ ভোটে নির্বাচিত হয়েছি।” মোদি সাহেব তো জনগণের ভোটে নির্বাচিত হয়েছে, কিন্তু আওয়ামী লীগ দুই তৃতীয়াংশ তো দূরের কথা কোনো ভোটেই নির্বাচতি হয় নাই। আওয়ামী লীগের এই মিথ্যাচার বন্ধ করতে হবে। আমরা আর মায়ের চোখে কান্না দেখতে চাই না। হত্যা গুম বন্ধ করে আওয়ামী লীগকে বিদায় করতে হবে।’

গুম, অপহরণ এবং বিচার বহির্ভূত হত্যাকাণ্ডের প্রতিবাদে বুধবার বিকেলে ধলেশ্বরীর তীরে জেলা বিএনপি আয়োজিত জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। এতে সভাপতিত্ব করেন জেলা বিএনপির সভাপতি আব্দুল হাই। এসময় বিএনপি সরকার গঠন করলে মুন্সীগঞ্জ পৌরসভাকে সিটি করপোরেশনে উন্নীত করার দাবি জানায় স্থানীয় নেতারা।

খালেদা জিয়া বলেন, ‘এতোদিন জনগণ কেঁদেছে এবার আওয়ামী লীগকে কাঁদতে হবে। আওয়ামী লীগকে জনগণের কাছে হাতজোড় করতে হবে। কারণ তারা অপরাধ করেছে। অনেক অপরাধের ক্ষমা হয় কিন্তু এমন অপরাধ আছে তার কোনো ক্ষমা হবে না।’

শেখ হাসিনার উদ্দেশ্যে খালেদা জিয়া বলেন, ‘সময় নষ্ট না করে, দেরি না করে, অবিলম্বে নিরপেক্ষ সরকারের কাছে ক্ষমতা দেন। এমন সময় আসবে চেলাদের আর পাশে পাবেন না। আমরা আপনাকে সম্মান দেবে। আমরা আপনার পাশে থাকবো।’

বিএনপি চেয়ারপারসন বলেন, ‘মুন্সীগঞ্জ বিএনপির ঘাঁটি। এখানকার জনগণ চেনে শুধু ধানের শীষ। তাই এখানকার একটি আসন কেটে নেয়া হয়েছে। এখান থেকে বিএনপির কোনো নেতা কখনো ফেল করতো না। আওয়ামী লীগের কারসাজিতে সবাই ফেল করেছে। এবারও ডেকেছিল কয়েকটি আসন দেয়ার জন্য। কিন্তু আমরা ভাগ-বাটোয়ারার রাজনীতি করি না। আমরা বলেছি জনগণকে নিয়ে রাজনীতি করবো।’

‘৫ জানুয়ারি এই দেশে কোনো নির্বাচন হয়নি। নির্বাচনের দিন সব কেন্দ্র ফাঁকা ছিল। মানুষের কোনো লাইন ছিল না, ভীড় ছিল না। কেন্দ্রের সামনে কোনো মানুষ ছিল না, খবরের কাগজে দেখেছেন সেখানে কুকুর বসেছিল। জনগণ তাদের সম্পূর্ণভাবে প্রত্যাখ্যান করেছে। জনগণ বলেছিল সকল দলের নির্বাচন হলে তারা নির্বাচনে যাবে।’ বলেন খালেদা জিয়া।

তিনি বলেন, ‘এই সংসদটা পুরোপুরি অবৈধ, সরকারও অবৈধ। এই সংসদ জনগণের টাকায় চলে, এই সংসদে মিথ্যাচার আরা গালাগালি ছাড়া কোনো কাজ হয় না। বাংলাদেশে শুধু সন্ত্রাস চলছে, টেন্ডারবাজি চলছে। ছাত্রলীগ-যুবলীগ দখলবাজি করছে, সবকিছু ফ্রি স্টাইলে চলছে।’

তিনি আরো বলেন, ‘সরকারি জিনিস কোনো নীতি ছাড়াই বিক্রি করা হচ্ছে। এ জন্যই দুর্নীতির মহোৎসব চলছে। দুর্নীতিবাজ সরকার ক্ষমতায়। এরা ক্ষমতায় আসার পর থেকে খুন, গুম শুরু করছে। ইলিয়াস আলী জোর গলায় কথা বলতো সেজন্যে তার ড্রাইভারসহ তাকে গুম করা হলো। গুম, খুন হলো আওয়ামী লীগের কর্মকাণ্ড। এগুলো আওয়ামী লীগের জন্য নতুন কিছু নয়। তরুণ প্রজন্ম এসব জানে না। আওয়ামী লীগের নীতি হলো জবরদস্তি করে ক্ষমতায় টিকে থাকা।’