সোমবার ২১শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং ৬ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

Ad

সর্বশেষঃ

রেবেকার কাছে গেলেন অন্য এক ওবামা!

আপডেটঃ ৫:৩০ পূর্বাহ্ণ | জুলাই ০৬, ২০১৪

প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামাকে চিঠি লিখেছিলেন ৩৬ বছরের হিসেবরক্ষক রেবেকা আর্লার৷ ২০০৮ সালে আমেরিকায় অর্থনৈতিক বিপর্যয় দেখা দিয়েছিল, এখনও তার ধাক্কা কাটিয়ে উঠতে পারেনি রেবেকার পরিবার৷ কীভাবে দিন কাটে দুই সন্তানের জননী রেবেকার তা জানিয়েই চিঠি দেন খোদ প্রেসিডেন্টকে৷

এমন চিঠি দিনে গড়ে দশটা করে পেয়ে থাকেন ওবামা৷ কিন্তু রেবেকার চিঠিকে অবজ্ঞা করতে পারেননি বিশ্বের সবচেয়ে ক্ষমতাধর প্রসিডেন্ট৷ রেবেকার কাছে মিনেসোটার মিনিয়াপোলিসের একটি সাধারণ মানের রেস্তোরাঁয় দেখা করার অনুরোধ যায় হোয়াইট হাউস থেকে৷

নিজের ভাগ্যকে বিশ্বাস করতে না পারলেও নির্দিষ্ট সময়ের আগেই শহরের ‘ম্যাটস বার’ রেস্তোরাঁয় হাজির হন রেবেকা৷ তাকে অবাক করে দিয়ে কিছুক্ষণের মধ্যেই হাজির হলেন ওভাল অফিসের প্রধান কর্তা৷

না, রোজকার মতো থ্রি-পিস স্যুট নেই পরণে৷ টাই রয়েছে ঠিকই, তবে ব্লেজার খোলা৷ পুরোহাতা ফর্ম্যাল শার্টের হাত দু’টো কনুই পর্যন্ত গোটানো৷ ভালো করে না দেখলে একবারও মনে হবে না স্বয়ং এই ব্যক্তিই মার্কিন মুলুকের প্রেসিডেন্ট৷ বদলে মনে হবে, রাস্তার উল্টো পাশের কোনও অফিসে কর্মরত, চটজলদি লাঞ্চ সেরে নিতে এসেছেন ম্যাটস বার-এ৷

পরস্পরের প্রতি সৌজন্য বিনিময়ের পর খাবারের টেবিলে বসে একেবারেই সহজভাবে মার্কিন প্রেসিডেন্ট গল্প শুরু করেন রেবেকার সঙ্গে৷ মৃদু আলোয় আলোকিত রেস্তোরাঁয় ‘জুসি লুসি’ নামে পরিচিত হ্যামবার্গার আর সঙ্গে চিজ দেওয়া প্যাটি অর্ডার দিয়ে ফের রেবেকার দৈনন্দিন জীবন ও খরচ নিয়ে আলোচনায় ফিরলেন প্রেসিডেন্ট৷ রেস্তোরাঁয় রেবেকা আসার আগে থেকেই যে ক’জন শক্তপোক্ত চেহারার পুরুষ ও সতর্ক চোখের মহিলা বসে ছিলেন, তারা মার্কিন প্রেসিডেন্টের দেহরক্ষী হলেও তাদের হাবভাবে একবারও তেমন কিছু টের পাননি অর্থনৈতিক বিপর্যয়ে প্রায় ভিখারি হয়ে যাওয়া রেবেকা৷

স্বামী ছিলেন একটা ছোটখাটো নির্মাণ সংস্থার মালিক৷ সেই সংস্থা উঠে গেছে। দুই সন্তান এ বার স্কুলে ভর্তি হবে৷ তাদের ভালো করে পুষ্টিকর খাবার দিতে গিয়েই দিশেহারা অবস্থা গৃহকর্ত্রীর৷ প্রেসিডেন্টের কাছে তিনি এ সবের কিছুই লুকোননি৷ জবাবে ওবামা বলেছেন, ‘হতাশ হবেন না৷ আপনাদের জন্যই আমি রোজ অফিসে আসি৷ মনে রাখবেন নিন্দাবাদ খুব জনপ্রিয় ঠিকই, কিন্তু আশা তার চেয়েও ভালো৷’ ওবামা জানিয়েছেন, প্রতিদিনই দেশের পরিস্থিতি যেন আরও খারাপ হয়ে পড়ছে৷ অসহায়তার জন্য নিজেকে তার খাঁচায় বন্ধ ভালুকের মতো মনে হচ্ছে৷

নির্বাচনে জিতেছেন ঠিকই, কিন্তু মার্কিন কংগ্রেস রিপাবলিকানদের হাতে থাকায় রোজই নতুন নতুন বাধার মুখে পড়ছেন প্রেসিডেন্ট৷ এ দিনে সামনে অন্তবর্তী নির্বাচন৷ এমন পরিস্থিতিতে জনসংযোগ বাড়াতে নতুন কোনও উপায় খুঁজছিল ডেমোক্র্যাট শিবির৷ রেবেকা আর্লার আর্তিতে সেই পথের দিশা পেলেন ওবামা৷ দুঃস্থ মার্কিনদের মুখ হিসেবে তিনি রেবেকাকেই উদাহরণ হিসেবে খাড়া করবেন ঠিক করেছেন৷ রেবেকার সঙ্গে দেখা করা ছাড়াও ওই দিন একাধিক জনসংযোগের কাজ করেছেন প্রেসিডেন্ট৷ – নিউ ইয়র্ক টাইমস