সোমবার ২১শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং ৬ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

Ad

সর্বশেষঃ

‘সাকিবের ঔদ্ধত্য সীমা ছাড়িয়ে গেছে’

আপডেটঃ ৫:৩৫ পূর্বাহ্ণ | জুলাই ০৬, ২০১৪

”সাকিবের মত এমন অখেলোয়াড় সুলভ আচরণ আর কোন ক্রিকেটার আগে দেখায়নি। সাকিব অতীতের সবকিছুকে ছাড়িয়ে গেছে।  তাই তাকে আর কোন ছাড় দিবে না বিসিবি”। আজ সংবাদকর্মীদের সঙ্গে আলাপকালে এভাবেই কথা বলেছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের(বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসান পাপান।

ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরকে সামনে রেখে গত ১ জুলাই থেকে অনুশীলন শুরু করেছে বাংলাদেশ দল। কিন্তু সাকিব সতীর্থদের সঙ্গে অনুশীলনে যোগ দেননি। বরং বোর্ডের অনুমতি ছাড়াই ক্যারিবীয় টি-টুয়েন্টি আসর সিপিএল খেলার জন্য দেশ ছাড়েন তিনি। এরপর টাইগারদের কোচ হাথুরুসিংহে সাকিবকে চিঠি দিয়ে আগামী ১ আগস্ট থেকে দলের সঙ্গে অনুশীলনে যোগ দেওয়ার নির্দেশ দেন।

বোর্ডের নির্দেশ ও কোচের চিঠির প্রেক্ষিতে দেশে ফিরে এসেছেন সাকিব। তবে অখুশি সাকিব জানিয়েছেন, তার সঙ্গে এসব  চলতে থাকলে দেশের হয়ে আর ক্রিকেট খেলবেন না তিনি। হাথুরুসিংহে বোর্ড সভাপতি পাপনকে টেক্সট মেসেজের মাধ্যমে তেমনটিই জানিয়েছেন।

সাকিবের এমন আচরণের ব্যাপারটি আজ শনিবার সকালে মিডিয়ার খবরে উঠে এলে চারপাশে বেশ হইচই পড়ে যায়। সবার অপেক্ষা ছিল বিসিবির আনুষ্ঠানিক প্রতিক্রিয়ার জন্য। আর দুপুরে সবার অপেক্ষার অবসান ঘটিয়েছেন পাপন। তবে তিনি যে সুরে কথা বলেছেন তাতে মনে হয়েছে বার বার ঝামেলায় জড়ানো সাকিবকে এবার বড় শাস্তিই দিতে যাচ্ছে বিসিবি।

পাপন বলেন, সাকিবের সিপিএলে খেলতে যাওয়া নিয়ে আমাদের কোন অসন্তোষ নেই। কিন্তু সে পুরো বিষয়টি যেভাবে হ্যান্ডেল করেছে তাতে আপত্তি আছে আমাদের। সে বোর্ডের প্রতিক্রিয়ার জন্য অপেক্ষা করেনি। নিজের ইচ্ছে মত সব কিছু করেছে। কোচের সঙ্গে বাজে কিছু হয়েছে বলেও খবর পেয়েছি আমি। এরকম অখেলোয়াড় সুলভ আচরণ আমরা আগে আর কারোও কাছ থেকে পাইনি। তাই বোর্ড ওকে আর ছাড় দিবে না। ওর কোনরকম ঔদ্ধত্য মেনে নেয়া হবে না।

এদিকে, আচরণবিধি মেনে না চলার দায়ে সাকিবের যে শাস্তি হবে সেটা প্রায় নিশ্চিত। তবে কি ধরণের শাস্তি হতে পারে সে বিষয়ে পাপন আজই মন্তব্য করতে রাজি হননি। তিনি বলেন, কোন ক্রিকেটার যদি ভেবে বসে যে তাকে আমরা বাদ দিতে পারবো না। তবে সেটা তার ভুল ধারণা। সাকিবের কি শাস্তি হবে সেটা নিয়ে এখনই কিছু বলতে চাই না। তবে ৭ তারিখের বোর্ড সভার পরই সব জানতে পারবেন।

অন্যদিকে, ভারত সিরিজে মুশফিকদের অসহায় আত্মসমর্পন সম্পর্কে মন্তব্য করতে গিয়ে বিসিবি সভাপতি দলের মধ্যে সমঝোতার অভাবকে সামনে আনেন। তিনি বলেন, দলের মধ্যে ঝামেলা আছে। সেটা মাঠের খেলা দেখে স্পষ্ট বোঝা গেছে। আমি বিশ্বকাপের পরই বলেছিলাম দলের সব ক্ষেত্রে ব্যাপক পরিবর্তন আসবে। এখনও সে সিদ্ধান্তে স্থির আছি। তবে বোর্ড সভায় সব সিদ্ধান্ত হবে। শুধুমাত্র কোচ পরিবর্তনের মধ্যেই আমরা সীমাবদ্ধ থাকবো না। এর দায় দলকেও নিতে হবে। আমি গ্যারান্টি দিয়ে বলতে পারি সেদিন আমাদের অনূর্ধ্ব-১৯ দলকে নামিয়ে দিলেও ১০৫ রান তাড়া করে জিততে পারতো ওরা।