সোমবার ২১শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং ৬ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

Ad

সর্বশেষঃ

নওগাঁর আত্রাইয়ে আদম বেপারীর খপ্পর

আপডেটঃ ৯:২৫ অপরাহ্ণ | জুলাই ০৮, ২০১৪

নিখোঁজের ১৩ মাস, মেলেনি

থামেনি পরিবারের হাহাকার

তাপস কুমার, নওগাঁ বু ̈রো ঃ

উচ্চ বেতনের চাকুরির আশায় আদম বেপারীর খপ্পরে পড়ে তেরো

মাস আগে নওগাঁর আত্রাই উপজেলা থেকে অবৈধ ̈ অসহায়, গরীব

৯ যুবক মালোয়েশিয়া যাওয়ার পথে নিখোঁজ হয়। নিখোঁজ

হওয়ার ঘটনায় গ্রামে কয়েক বার বৈঠক প্রশাসনকে

জানিয়েও কোন লাভ হয়নি বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এলাকায়

বহুল আলোচিত এ ঘটনা ঘটলেও জেলার পুলিশ প্রশাসন

দাবি করেন তারা কিছু জানেন না।

এদিকে পরিবারের এক মাত্র অর্থ উপার্জনকারীদের হারিয়ে তারা

পরিবার পরিজন নিয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছে। নিখোঁজদের

ফিরে আনতে আদম বেপারীদের উপর চাপ দিলে নানা তাল বাহানা

করেন।

hfds

সরকারের কাছে এখন পরিবার ও এলাকাবাসি দাবি

জানিয়েছেন আদম বেপারীদের দধুত গ্রেফতার করে নিখোঁজদের

ফিরে দিতে।

নিখোঁজক…তরা হলেন, আত্রাই উপজেলার ইসলামগাঁতী গ্রামের

শামসুল রহমানের ছেলে আবু তায়েব প্রাং (২০), চাঁন প্রাং এর

ছেলে হামিদুল ইসলাম (১৮), সুরুজ প্রাং এর ছেলে সজিব প্রাং

(১৮), শফির প্রাং এর ছেলে মহসিন প্রাং (২৮), জানবক্সের ছেলে

মোশারফ হোসেন (২২), মল্লিক মন্ডলের ছেলে আলতাব মন্ডল (২৪),

মোহাম্মদ শেখের ছেলে মিয়াজান শেখ (৩২), উপজেলার রাণীনগর

গ্রামের মজিবর রহমানের ছেলে উজ্জল হোসেন (২৬) ও মেহের আলীর

ছেলে খোকন হোসেন (২১)।

সরেজমিনে জানা গেছে, আত্রাই উপজেলার ইসলামগাঁতী

গ্রামের সামাদ ও ময়েজ নামে দুই আদম বেপারী বেশি বেতনে

চাকুরি দেবে বলে জন প্রতি ২৫ হাজার টাকা হাতিয়ে নিয়ে

একই গ্রামের একই পাড়ার গরীব, অসহায় ৯ জন ও পাশ্বেবর্তী

রাণীনগর গ্রাম থেকে ২ জন যুবককে গত ২০১৩ সালের ১২

জুন মালোয়েশিয়া অবৈধ ̈ ভাবে যাওয়ার উদ্দেশে নিয়ে যান।

এরপর দেশের বিভিন্ন এলাকার বিভিন্ন জা থেকে ২৫/২৬ জন

যুবককে প্রথমে নাটোর জেলায় একটি হোটেলে একত্র করা হয়।

এরপর বিভিন্ন দালালের হাত ঘুরে নিয়ে যাওয়া হয় টেকনাফে। এরপর

আব্দুল্লাহ ও ইসমাইল নামে অন ̈ দুই আদম বেপারীর কাছে তাদের

দুটি গ্রুপে বিভ৩ করা হয়। তখন আব্দুল্লাহ গ্রুপের কয়েক

জন যুবকরা বুঝতে পারেন তারা বিপদের মূখে। তখন তারা কৌশলে

জীবন নিয়ে পালিয়ে আসে আদম বেপারীদের হাত থেকে। আর তারা

ফিরে এসে পরিবারদের বিষয়টি জানালো আদম বেপারীদের চাপ দিলে

আদম বেপারীরা কখনো বলেন মালদ্বীপ পুলিশের হাতে আটক আছে,

কখনো বলেন বার্মা দেশে পুলিশের হাতে আটক আছে, কখনো

বলেন তারা থাইল ̈ান্ড পুলিশের হাতে আটক আছেসহ বিভিন্ন

ভাবে তাল বাহানা করে সময় পার করতে থাকে। ছয় মাস আগে তাদের

খোঁজ দিবে বলে নিখোঁজ ও পরিবারদের কাছে ফিরে দেবে বলে

তাদের (পরিবার) কাছ থেকে জন প্রতি আরো ৫০ হাজার টাকা করে

হাাতিয়ে নেয় সামাদ ও ময়েজ। নিখোঁজদের খোঁজ দেয়ার নাম

করে ওই টাকা নিয়ে পালিয়ে যায় সামাদ। এদিকে পরিবারের এক মাত্র

অর্থ উপার্জনকারীদের হারিয়ে তারা পরিবার পরিজন নিয়ে মানবেতর

জীবন যাপন করছে। কিন্তু আজো কোন খোঁজ দেয় নি।

সজিব প্রাং এর সুরুজ প্রাং জানান, দুই আদম বেপারী সামাদ ও

ময়েজ গ্রামের ৭ ও পাশ্ববর্তি গ্রামের ২ যুবককে মালোয়েশিয়া

বেশি বেতনের চাকুরি দেবে বলে নিয়ে যায়। টধলারে তোলার দেয়ার

পর তাদের নিয়ে যাওয়া পর নিখোঁজ হয়। এরপর তাদের খোঁজ পাওয়া

যায়নি। তাদের চাপ দিলে কখনো বলেন মালদ্বীপ, থাইল্যান্ড, বার্মা

দেশে পুলিশের হাতে আটক আছে, কখনো বলে আপনাদের ছেলেরা

মালোয়াশিয়ায় ভালো আছে। কিন্তু তাদের সাথে কখনো কথা বলে

দেননি বা যোগাযোগ করে দেননি। গত ছয় মাস আগে তাদের

খোঁজ দেবে বলে আবার জনপ্রতি ৫০ হাজার টাকা করে নেয় তারা।

এরপর থেকে সামাদ আদম বেপারী পালিয়ে যায়। বিভিন্ন সময়

গ্রাম ̈প্রধান, ইউপি সদস ̈, পুলিশ প্রশাসনকে জানালেও

কোন পদক্ষেপ গ্রহন করেনি। এতে তারা তাদের সন্তানদের ফিরে পাবে

কি না তাই নিয়ে সব সময় আতঙ্কে থাকতে হচ্ছে।

মহসিন এর স্ত্রি সম্পা বিবি জানান, তাদের সহায়

সম্পত্তি ও অর্থ উপার্জনকারী বলতে তিনিই একমাত্র ছিলেন। তার

উপার্জনেই বৃদ্ধ শ্বশুড়, শ্বাশুড়ী ও দুটি শিশু সন্তান নিয়ে খুব কষ্টে

চলত। তিনি নিখোঁজ হওয়া পর থেকে তাদের না খেয়ে বেশি ভাগ

দিন পার করতে হচ্ছে। এখন তারা কি ভাবে বাঁকি জীবন পার করবে

এই কথা বলতে বলতে তিনি কেঁদে ফেলেন।

আবু তায়েব বৃদ্ধা মা ভানু বেওয়া জানান, তাদের সন্তান হারিয়ে

এখন কষ্টে দিন কাটাতে হয়। এক বেলাই খাবার জোটে না।

সন্তানকে কি ভাবে দেশ দেশান্তরে খোঁজ করব।

আদম বেপারীদের হাত থেকে পালিয়ে আসা ইসলামগাঁতী গ্রামের

হাামিদ আলী মোল্লা ও ফেরদৌস প্রাং জানান, আদম বেপারীরা

প্রথমে নাটোর একটি হোটেলে তাদেরসহ ২৫ থেকে ২৬ জনকে

একত্র করে। বিভিন্ন পথ ঘুরে নাটোর থেকে সবাই টেকনাফ যান।

এরপর দুটি গ্রুপে ভাগ হওয়ার পর বিপদ বুঝতে পেরে তারা আদম

বেপারীদের হাত থেকে জীবন নিয়ে বেঁচে আসেন। অন ̈দের কোন

আর খোঁজ পাননি।

ইসলামগাঁতী আদম বেপারী ময়েজ উদ্দিন ওই ৯ যুবককে বিদেশে

পাঠানো সাথে জড়িত নয় বলে অভিযোগ অঙ্গিকার করলেও বলেন,

ময়েজ এদের বিদেশে নিয়ে যাওয়ার জন ̈ টেকনাফে নিয়ে যায়।

এরপর আব্দুল্লাহ ও ইসমাইল নামে অন ̈ দুই আদম বেপারীর কাছে

তুলে দেয়া হয়। তারা এখন কোথায় আছে তিনি জানেন না। আদম

বেপারী সামাদের  স্ত্রি লাইলি বেগম তার স্বামী কোথায় আছেন

জানেন না বলে দাবি করেন।

বিশিয়া ইউপি চেয়ারম ̈ন আব্দুল মান্নান মোল্লা এ

ঘটনার সত ̈তা কার করে বলেন, আদম বেপারীদের দধুত গ্রেফতার

করে নিখোঁজ ৯ যুবকদের তাদের পরিবারের কাছে ফিরে দেওয়ার দাবি

জানান। তিনি আরো বলেন, আদম বেপারীরা বিভিন্ন রাজনৈতিক

দলের সাথে থাকায় একের পর এক এ ধরনের কাজ করে রক্ষা পায়। যার

কারণে আদম বেপারীদের কোন বিচার হয় না।

আত্রাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হেমন্ত হেনরী কুবী জানান,

ঘটনাটি তাদের কেউ না জানানো কারণে জানা যায়নি। তবে

তদন্ত করে প্রয়োজনীয় সব গ্রহণ করা হবে। নওগাঁ পুলিশ

সুপার কাইয়ুমু খাঁন জানান, এ ঘটনাটি তার জানা

নাই।

পরিবার ও গ্রামবাসি দধুত এ ঘটনার সাথে জড়িতদের

গ্রেফতার করে নিখোঁজদের ফিরিয়ে দিতে সরকারের নিকট দাবি

জানিয়েছেন।

তাপস কুমার

নওগাঁ বু ̈রো
তারিখ ৮ জুলাই ২০১৪খিধ: