| |

Ad

গোপালগঞ্জের কাশিয়ানীতে প্রভাবশালী বিএনপি নেতার অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলন-ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে কৃষকরা

আপডেটঃ ১১:০৩ অপরাহ্ণ | নভেম্বর ১২, ২০১৮

এম শিমুল খান, গোপালগঞ্জ : গোপালগঞ্জের কাশিয়ানীতে অবৈধ ভাবে প্রভাবশালী কর্তৃক বালু উত্তোলন করায় জমির মালিক ও কৃষকরা ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ব্যাপারে গোপালগঞ্জ জেলা প্রশাসক বরাবর লিখিত অভিযোগ করেছেন ক্ষতিগ্রস্থ স্থানীয় জমির মালিকেরা।

অভিযোগে প্রকাশ, কাশিয়ানী উপজেলার বেথুড়ী গ্রামের প্রভাবশালী বিএনপি নেতা এ্যাডভোকেট সেলিম মোল্যা দীর্ঘ দিন ধরে রামদিয়ার বিল, লক্ষ¥ীডাঙ্গার বিল ও দক্ষিণডাঙ্গার বিলে তার নিজস্ব এবং সরকারি ভিপি জমি থেকে শ্যালো ইঞ্জিনচালিত ড্রেজার মেশিন বসিয়ে লাখ লাখ ঘন ফুট বালু উত্তোলন করছেন। এসব বালু রাস্তার কাজে ঠিকাদারদের কাছে বিক্রি করে কোটি কোটি টাকা আয় করছেন। এতে পার্শ্ববর্তী জমির মালিক ও কৃষকরা চরম ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছেন। ফসলি জমি ভেঙে পুকুরে পরিণত হচ্ছে। ক্ষতিগ্রস্থ জমির মালিকরা বালু উত্তোলনে বাঁধা দিলেও তা মানছেন না ক্ষমতাশালী বিএনপি সেলিম মোল্যা। ফলে দিন দিন বালু উত্তোলনের বিরুদ্ধে ফুঁসে উঠছেন এলাকাবাসী। যে কোন সময় বড় ধরণের অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটতে পারে বলে আশংকা করছেন স্থানীয়রা।

বেথুড়ী গ্রামের সিরাজ খন্দকার, বাশার খন্দকার, লায়েকুজ্জামানসহ একাধিক ক্ষতিগ্রস্থ জমির মালিক জানান, তাদের জমি ঘেঁষে অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলন করা জমি ভেঙে চরম ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছেন তারা। বার বার নিষেধ করলেও প্রভাব খাটিয়ে তাদের নিষেধ উপেক্ষা করে নিয়মবহির্ভূতভাবে ভূ-গর্ভস্থ থেকে বালু উত্তোলন অব্যাহত রেখেছেন।

পরিবেশকর্মী বিধান টিকাদার বলেন, ‘ভূ-গর্ভস্থ থেকে ড্রেজার দিয়ে বালু উত্তোলনের কারণে ভূ-গর্ভে গভীর খাদের সৃষ্টি হতে পারে। যার কারণে ভূমিকম্প প্রবণতা সৃষ্টি হতে পারে। তাই ভূ-গর্ভস্থ থেকে বালু উত্তোলন করা সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ ও অনুচিত।
এ ব্যাপারে বিএনপি নেতা এ্যাডভোকেট সেলিম মোল্যা বলেন, আমি আমার নিজেস্ব জমি থেকে বালু উত্তোলন করছি।
কাশিয়ানী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইউএনও এ এস এম মাঈন উদ্দিন বলেন, বালু উত্তোলনের বিষয়টি আমি জানতে পেরেছি এবং সেখানে লোক পাঠিয়ে বন্ধ করে দিয়েছি। তবে পুনরায় বালু উত্তোলন করলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।