বৃহস্পতিবার ২৩শে মে, ২০১৯ ইং ৯ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

Ad

সর্বশেষঃ

কাপাসিয়ায় প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থীর বাড়িতে হামলা, মারধর-ভাংচুর : ১৬ জনের বিরুদ্ধে মামলা

আপডেটঃ ১১:২১ পূর্বাহ্ণ | মার্চ ০৩, ২০১৯

গাজীপুর প্রতিবেদক: গাজীপুরের কাপাসিয়ার রায়েদ ইউনিয়ন পরিষদ উপ-নির্বাচনে বিজয়ী ঘোষনার সাথে সাথে প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থীর বাড়িতে সহিংসতা চালিয়ে ব্যাপক ভাবে হামলা, ভাংচুর ও মারধর করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এব্যাপারে একই দলের বিদ্রেূাহী প্রার্থী হাবিবুর রহমান হবি’র পুত্র সাখাওয়াত হোসেন বাদী হয়ে ১৬ জনের বিরুদ্ধে কাপাসিয়া থানায় মামলা (নং-০১(০৩) ২০১৯) দায়ের করেছে। থানা এবং বাদী সূত্রে মামলার বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া গেছে।

জানা যায়, উপজেলার রায়েদ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল হাই’র মৃত্যুর ফলে এ আসনটি শূণ্য হয়। গত ২৮ ফেব্রুয়ারি, বৃহস্পতিবার সে আসনে ভোট গ্রহণ শেষে আওয়ামীলীগ দলীয় প্রার্থী সফিকুল হাকিম মোল্লা হিরন ৩৭০ ভোটের ব্যবধানে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়। ফলাফল ঘোষণার কিছুক্ষণ পর হিরন মোল্লার সমর্থকরা রায়েদ মধ্যপাড়া কামারবাড়ি এলাকায় প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থী হাবিবুর রহমান হবির পুত্র সাখাওয়াতহোসেন ও নাহিদ রহমানের উপর অতর্কিত হামলা চালায়। এ সময় সাখাওয়াত ও নাহিদের ব্যবহৃত একটি সাদা রংয়ের প্রাইভেটকার (ঢাকা-মেট্রো-গ-১৫-২০৪১) ও ১৫০ সিসি নীল রংয়ের পালসার মোটরসাইকেল (ঢাকা-মেট্রো-ল-১৫-৭১৫২) ভাংচুর করে। তারা গাড়িতে এলোপাথারি বাইরাইয়া গ্লাস, লাইট ভেঙ্গে চেপ্টা করে ফেলে। এতে তাদের ১ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে দাবী করেছে।

এ ব্যাপারে সাখাওয়াত হোসেন বাদি হয়ে ১০ জনের নাম উল্লেখ এবং অজ্ঞাত ৫-৬ জনের নামে একটি মামলা দায়ের করে। মামলার আসামীরা হলো, নির্বাচিত চেয়ারম্যান হিরন মোল্লার ভাগিনা ও রায়েদ ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি রাহাদ (২৬), শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ সরকারি কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি শাকিল মোল্লা (২৩), ছাত্রলীগ নেতা মিনহাজ (২২), মোঃ সৌরভ (২২), হাফিজুল (২২), বাপ্পি (১৯), দীপ্ত (২২), ইউনিয়ন যুবলীগ নেতা শাকিল মোল্লা (২৪), রাব্বি (২৩), ও সুমন (২৪)।

এছাড়া ওইদিনই প্রতিদ্বন্দ্বিপ্রার্থী হাবিবুর রহমান হবির সমর্থক গাজীপুর জেলা পরিষদের সদস্য আওয়ামীলীগ নেতা ওয়াজ উদ্দিন মোল্লার বাড়িতে হামলা চালিয়ে ব্যাপক ভাবে ভাংচুর করে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় সে বাদি হয়ে কাপাসিয়া থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন।
এ ব্যাপারে প্রতিদ্বন্দ্বি চেয়ারম্যান প্রার্থী হাবিবুর রহমান হাবি জানান, তার প্রতিদ্বন্দ্বি হিরন মোল্লার সমর্থীতরা প্রথমে তাকে মারধর করার চেষ্টা করে না পেয়ে দুই পুত্র সাখাওয়াত ও নাহিদকে মারধর করে এবং তাদের ব্যবহৃত প্রাইভেটকার ও মোটরসাইকেল ভেঙ্গে ফেলে। হাবিবুর রহমান এর সুষ্ঠু তদন্ত ও সঠিক বিচার দাবী করেন।

গাজীপুর জেলা পরিষদের সদস্য ওয়াজ উদ্দিন মোল্লা জানান, ছাত্রলীগ নেতা রাহাদ ও শাকিল মোল্লার নেতৃত্বে তার উপর ও বসত বাড়িতে অতর্কিতে হামলা চালানো হয়েছে। এতে তার ব্যাপক ক্ষয়-ক্ষতি হয়েছে বলে দাবী করেন।