বৃহস্পতিবার ২৩শে মে, ২০১৯ ইং ৯ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

Ad

সর্বশেষঃ

বিজিএমইএর প্রথম নারী সভাপতি হচ্ছেন -রুবানা হক. মেয়র আনিসুল হকের স্ত্রী

আপডেটঃ ১১:৫৭ পূর্বাহ্ণ | মার্চ ০৩, ২০১৯

নিজস্ব প্রতিবেদক : বাংলাদেশের রপ্তানি আয়ের প্রধান খাত তৈরি পোশাক শিল্প মালিকদের সংগঠন বিজিএমইএর প্রথম নারী সভাপতি হতে যাচ্ছেন প্রয়াত মেয়র আনিসুল হকের স্ত্রী রুবানা হক।পোশাক ব্যবসায়ীদের সংগঠনটির প্রথম নারী সভাপতি হতে চলেছেন মোহাম্মদী গ্রুপের এই ব্যবস্থাপনা পরিচালক রুবানা।আগামী ৬ এপ্রিল বিজিএমইএর নির্বাচন হবে।ওই নির্বাচন সামনে রেখে শনিবার সম্মিলিত পরিষদ এবং ফোরাম সমঝোতার মাধ্যমে যে প্যানেল জমা দিয়েছে তাতে দলনেতা করা হয়েছে ঢাকা উত্তরের প্রয়াত মেয়র বিজিএমইএর সাবেক সভাপতি আনিসুল হকের স্ত্রী রুবানা হককে।এতে নিশ্চিত করে বলা যায় যে, বিজিএমইএতে আগামী দুই বছর নেতৃত্ব দেবেন রুবানা হক।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে রুবানা হক সাংবাদিকদের বলেন, বিজিএমইএ নির্বাচনে সম্মিলিত পরিষদ ও ফোরামের পক্ষ থেকে পূর্নাঙ্গ প্যালেন জমা দিয়েছি। নির্বাচন নিয়ে আমি আশাবাদী। আশাহত হওয়ার কোনো কারণ নেই। আমরা জোটবদ্ধভাবে শক্তিশালী প্যানেল নিয়ে নির্বাচন করছি। আমাদের প্যানেলে যারা আছে তারা সবাই প্রতিষ্ঠিত ও যোগ্য নেতা। আমরা পোশাক খাতের উন্নয়নে কাজ করতে চাই। আশা করছি, আমাদের প্যালেন জয়ী হবে।


প্রয়াত মেয়ার আনিসুল হকের নেতৃত্বের প্রসঙ্গ টেনে রুবানা হক বলেন, ওনি আমার ৩০ বছরের সঙ্গী ছিলেন। ব্যবসা-বাণিজ্য সব ক্ষেত্রেই নেতৃত্ব শিখিয়েছেন। তিনিও বিজিএমইএ নেতৃত্ব দিয়ে উন্নয়নমূলক কাজ করেছেন। আশা করছি, নির্বাচিত হলে তার সম্মান অক্ষুণ্ন রাখতে পারব। একই সঙ্গে বর্তমান সভাপতির উন্নয়ন কাজের ধারাবাহিতা রক্ষা করব।এদিকে প্রায় পাঁচ বছর পর বিজিএমএমইএ’র পরিচালনা পর্ষদের নির্বাচন হবে আগামী ৬ এপ্রিল। দুই বছর মেয়াদি পর্ষদের ৩৫টি পরিচালক পদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। তফসিল অনুযায়ী, শনিবার ছিল মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ দিন। প্রত্যাহারের শেষ দিন রাখা হয়েছে আগামী ৬ মার্চ।

রুবানা হকের জয়ের প্রসঙ্গে আনোয়ার-উল আলম চৌধুরী পারভেজ বলেন, “গতবার আমাদের সমঝোতা হয়েছিল সম্মিলিত পরিষদ থেকে সভাপতি হবে। আর পরের বার অর্থাৎ এবার ফোরাম থেকে সভাপতি হবে। সে মোতাবেক এবার আমরা আমাদের ফোরাম থেকে রুবানা হককে মনোনীত করে তাকে সম্মিলিত পরিষদ-ফোরামের দলনেতা হিসেবে প্যানেল জমা দেওয়া হয়েছে।“গার্মেন্ট মালিকদের প্রায় সবাই ফোরাম অথবা সম্মিলিত পরিষদের সমর্থক। তাই যদি নির্বাচনও হয় তাতেও শতভাগ নিশ্চিত যে, এই সমঝোতার প্যানেলই জয়ী হবে।”

শনিবার কারওয়ানবাজারে বিজিএমইএ কার্যালয়ে রুবানা হকের নেতৃত্বে সম্মিলিত পরিষদ-ফোরাম প্যানেলের মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার সময় বাণিজ্যমন্ত্রী ও বিজিএমইএর সাবেক সভাপতি টিপু মুনশিসহ বিভিন্ন সময়ে বিজিএমইএর সভাপতির দায়িত্ব পালন করা বেশ কয়েকজন উপস্থিত ছিলেন।টিপু মুনশি সম্মিলিত পরিষদের নেতৃত্ব দিয়ে আসছেন। এই পরিষদ থেকেই তিনি বিজিএমইএর সভাপতি নির্বাচিত হয়েছিলেন।
এছাড়া মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার সময় বিজিএমইএর আরেক সাবেক সভাপতি এফবিসিসিআই সভাপতি সম্মিলিত পরিষদ নেতা শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন এবং বিজিএমইএর বর্তমান সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান উপস্থিত ছিলেন।

অন্যদিকে ফোরামের নেতাদের মধ্যে রুবানা হক ছাড়াও বিজিএমইএর সাবেক সভাপতি আনিসুর রহমান সিনহা, আনোয়ার-উল আলম চৌধুরী পারভেজসহ অন্য নেতারা উপস্থিত ছিলেন। মেট্রোপলিটন চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির (এমসিসিআই) সভাপতি ব্যারিস্টার নিহাদ কবিরও উপস্থিত ছিলেন।