বৃহস্পতিবার ২৩শে মে, ২০১৯ ইং ৯ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

Ad

সর্বশেষঃ

টঙ্গীতে পূর্ব শত্রুতা ও ক্রিকেট খেলার জের হিসেবে ছাত্রলীগ কর্মীকে খুন করেছে দুর্বৃত্তরা

আপডেটঃ ১২:২২ অপরাহ্ণ | মার্চ ০৩, ২০১৯

এস,এম,মনির হোসেন জীবন ॥ পূর্ব শত্রুতা ও ক্রিকেট খেলার জের হিসেবে গাজীপুর মহানগরী শিল্পনগরী টঙ্গীতে দুর্বৃত্তদের ছুরিকাঘাতে এক ছাত্রলীগ কর্মী খুন হয়েছে। নিহতের নাম প্রিন্স মাহমুদ নাহিদ (২৭)। নিহত নাহিদ টঙ্গী পূর্ব থানাধীন দত্তপাড়া এলাকার জহিরুল ইসলামের ছেলেতিনি স্থানীয় ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সদস্য ছিলেন। এঘটনায়  শনিবার এরিপোর্ট লেখা পর্যন্ত পুলিশ কাউকে আটক করতে পারেনি।শুক্রবার দিবাগত রাত সাড়ে ৮টার দিকে টঙ্গী পূর্ব থানার ভরান মুন্সিপাড়া রোড এলাকায় এ খুনের ঘটনা ঘটে।টঙ্গী পূর্ব থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) শুভ মন্ডল শনিবার ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।তিনি জানান, ক্রিকেট খেলাকে কেন্দ্র করে দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এ সময় ছাত্রলীগের সদস্য প্রিন্স মাহমুদ নাহিদকে অন্য গ্রুপের সদস্যরা ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায়। পরে তাকে উদ্ধার করে টঙ্গী শহীদ আহসান উল্লাহ মাস্টার জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখান থেকে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় রেফার্ড করা হয়। ঢাকার কুর্মিটোলা হাসপাতালে নেয়ার পর দায়িত্বরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

নিহত নাহিদ টঙ্গী পূর্ব থানাধীন দত্তপাড়া এলাকার জহিরুল ইসলামের ছেলে।নিহত নাহিদের বড় ভাই জুয়েল মাহমুদ পারভেজ জানান, তাদের বাড়ি টঙ্গীর দত্তপাড়া এলাকায়। ছাত্রলীগ কর্মী নাহিদ টঙ্গী ভরার এলাকায় তার শ্বশুর বাড়িতে বেড়াতে যান। শুক্রবার দিবাগত রাত সাড়ে ৮টার দিকে নাহিদ স্থানীয় মসজিদে এশার নামাজ শেষে মসজিদ থেকে বের হয়ে শ্বশুরের বাসায় ফেরার পথে স্থানীয় রাফি, আকাশ, শাহজালাল ও চ লসহ ১০/১২ জন নাহিদকে ঘিরে ধরে। একপর্যায়ে নাহিদকে ছুরিকাঘাত করে তারা পালিয়ে যায়। শুক্রবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে টঙ্গী পূর্ব থানার ভরান মুন্সিপাড়া রোড এলাকায় এখুনের ঘটনা ঘটে। তিনি বলেন, ক্রিকেট খেলা ও পূর্ব শত্রুতার জের হিসেবে নয়, আমার ভাইকে পূর্বপরিকল্পিতভাবে দুর্বৃত্তরা ছরিকাঘাত করে হত্যা করা হয়েছে বলে তিনি দাবী করেন।

এ ব্যাপারে টঙ্গী থানা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মো. সোহেল রানা জানান, প্রিন্স মাহমুদ নাহিদ টঙ্গী থানা ছাত্রলীগের একজন ভালো এবং সক্রিয় কর্মী ছিলেন। তার হত্যার সঙ্গে যারাই জড়িত থাকুক আমি তাদের উপযুক্ত বিচার চাই।

টঙ্গী সরকারি বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি কাজী মনজুর জানান, নাহিদ টঙ্গী থানা ছাত্রলীগের একজন সক্রিয় কর্মী ছিলেন। আমি তার হত্যাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবী করছি।

টঙ্গী পূর্ব থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) শুভ মন্ডল জানান, পরে খবর পেয়ে নাহিদের মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়। এ ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন বলেও জানান তিনি।