শুক্রবার ১০ই জুলাই, ২০২০ ইং ২৬শে আষাঢ়, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

Ad

সর্বশেষঃ

/ শিল্প ও সাহিত্য

প্রশ্নপত্র আর ফাঁস হবে না, শিক্ষামন্ত্রীর চ্যালেঞ্জ

জানুয়ারি ১৪, ২০১৫

সচিবালয় প্রতিবেদক : আসন্ন মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট (এসএসসি) ও সমমানের পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস হবে না বলে চ্যালেঞ্জ করেছেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। বুধবার সচিবালয়ে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের পরীক্ষা সংক্রান্ত আন্তঃমন্ত্রণালয় কমিটির তৃতীয় সভায় তিনি এ চ্যালেঞ্জ করেন। আগামী ২ ফেব্রুয়ারি সারাদেশে একযোগে এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা শুরু হবে। পরীক্ষা সুষ্ঠুভাবে পরিচালনার জন্য এ বছর সচিবালয়সহ দেশের প্রতিটি জেলা ও উপজেলায় পরীক্ষা নিয়ন্ত্রণ কক্ষ বা কন্ট্রোল রুম স্থাপন করা হবে। এজন্য আপাতত ১টি টেলিফোন, ২টি মোবাইল নম্বর এবং একটি ই-মেইল ঠিকানা খোলা হয়েছে। ফোন নম্বর হচ্ছে-৯৫৪৯৩৯৫, মোবাইল-০১৭৭৭৭০৭৭০৫ এবং ০১৭৭৭৭০৭৭০৬, ই-মেইল examcontrolroom@moedu.gov.bd. শিক্ষামন্ত্রী বলেন, প্রশ্নপত্র ফাঁস রোধে আইনগতভাবে আরও কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর প্রতিনিধি আমাদের...

বাউল সম্রাট শাহ আবদুল করিমের ৫ম মৃত্যুবার্ষিকী আজ

সেপ্টেম্বর ১৬, ২০১৪

অসংখ্য জনপ্রিয় বাউল গানের জনক শাহ আবদুল করিমের ৫ম মৃত্যুবার্ষিকী আজ। 'গাড়ি চলে না, চলে না রে গাড়ি চলে না', 'আগে কি সুন্দর দিন কাটাইতাম', 'রঙের দুনিয়া তোরে চাই না'সহ অসংখ্য জনপ্রিয় বাউল গানের স্রষ্টা তিনি। ১৯১৬ খ্রিষ্টাব্দের সুনামগঞ্জের দিরাই উপজেলার উজানধল গ্রামে জন্ম গ্রহণ করেন গুণী এই শিল্পী। তার গান দেশের লোক সংস্কৃতি ও সাহিত্যকে সমৃদ্ধ করেছে। স্বীকৃতি হিসেবে অর্জন করেন একুশে পদক, বাংলাদেশ শল্পিকলা একাডেমী সম্মাননা, সিটিসেল-চ্যানেল আই মিউজিক অ্যাওয়ার্ডসহ দেশ-বিদেশের অসংখ্য পুরস্কার। কিন্তু প্রয়োজনীয় উদ্যোগ আর সংরক্ষণের অভাবে গুণী শিল্পীর সম্মাননা ও স্মৃতি নষ্ট হতে চলেছে। তার রচিত গানের চর্চার জন্য শিল্পী আবদুল করিমের প্রতিষ্ঠিত সঙ্গীত বিদ্যালয় পুরোপুরিভাবে চালুর দাবি জানিয়েছেন স্বজনরা।...

তোমার মৃত্যু নেই

আগস্ট ১৬, ২০১৪

- শাহজাহান মিয়াঁ শুধু আমাদের মাতৃভাষার শব্দভাণ্ডার নয়, সারা বিশ্বের সব ভাষাভাষীর শব্দভাণ্ডার থেকে সমুদয় বিশেষণ নিয়েও সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের অনন্য গুণাবলির সমাহারের সঠিক বর্ণনা দেওয়া যথেষ্ট হবে না। গণমানুষের জন্য এই মহান নেতার অপরিসীম ভালোবাসা, মমত্ববোধ ও দরদ; নেতৃত্ব দেওয়ার অতুলনীয় ক্ষমতা, প্রখর রাজনৈতিক প্রজ্ঞা, মেধা, দৃঢ়তা, চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য ও বলিষ্ঠতা; সাহস, হৃদয়ের বিশালতা, গরিব-দুঃখী মানুষের জন্য মায়া-মমতা ও আবেগের প্রকৃত বিবরণ প্রদান কোনো ভাষার শব্দসম্ভার দিয়েই সম্ভব নয়। কারণ কালজয়ী এই মহান ব্যক্তিত্ব, বাংলাদেশের স্বপ্নদ্রষ্টা, স্থপতি ও স্বাধীনতার মহানায়কের যথাযথ মূল্যায়ন কোনো শব্দ যোজনার মধ্যে সীমাবদ্ধ রাখা হবে একটি ব্যর্থ প্রয়াস। একজন মহাবিজয়ী মহাবীর সিপাহসালারের মতো শত প্রতিকূলতা জয়...

শহীদ বেগম মুজিবের অপ্রকাশিত একটি সাক্ষাতকার

আগস্ট ১৬, ২০১৪

‘পাক মিলিটারিরা বাসা ঘেরাও করে গুলি চালাতে শুরু করে’ ত্রিপুরার চিত্র সাংবাদিক রবীন সেনগুপ্ত। মুক্তিযুদ্ধের সময় তিনি মুক্তিযুদ্ধ সংশ্লিষ্ট অনেক ছবি তুলেছেন। ঢাকা থেকে ঐ সময় তোলা তার আলোকচিত্রের একটি সংকলনও প্রকাশিত হয়েছে, যার নাম ‘চিত্র-সাংবাদিকের ক্যামেরায় মুক্তিযুদ্ধ।’ মুক্তিযুদ্ধে অবদান রাখার জন্য বাংলাদেশ সরকার তাকে মুক্তিযুদ্ধ সম্মাননা প্রদান করে। গত মাসে গবেষণার কাজে আমি ত্রিপুরা গিয়েছিলাম। সেখানে শ্রী সেনগুপ্তের সঙ্গে দেখা করি। সাগ্রহে তিনি আমাকে গ্রহণ করেন এবং ঐ সময় বেগম ফজিলাতুন্নেসার তোলা একটি ছবি স্বাক্ষর করে আমাকে উপহার দেন যা এখানে ছাপা হলো। রবীন সেনগুপ্ত জানিয়েছেন, বিজয়ের পর যে কজন সাংবাদিক মুক্ত বেগম মুজিবের সঙ্গে সাক্ষাত করেন ও কথাবার্তা বলেন তাদের মধ্যে ছিলেন ত্রিপুরার ভূপেন চন্দ্র ভৌমিক, অনিল ভট্টাচার্য এবং তিনি নিজে।...

‘মহাকালে বিশ্বমানব গাইবে যে তাঁর গান’

আগস্ট ১৬, ২০১৪

আবদুল মান্নান সাবেক উপাচার্য, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় এটি এখন অনেকটা দিবালোকের মতো পরিষ্কার যে বাংলাদেশের স্বাধীনতা আন্দোলনের সময়ই বঙ্গবন্ধুর মৃত্যুর বীজ বপিত হয়েছিল। বাঙালি বাংলাদেশকে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর দখল হতে মুক্ত করতে দীর্ঘ ৯ মাস একটি রক্তক্ষয়ী যুদ্ধে লিপ্ত হয়েছিল, ঠিক আবার সেই বাঙালিদেরই একটি অংশ ছিল, যারা কখনো চায়নি তাদের সাধের পাকিস্তান ভেঙে বাংলাদেশ নামের আর একটি স্বাধীন দেশের জন্ম হোক। এই দলে যেমন ছিল জামায়াত-মুসলিম লীগের ভাবধারার একটি বড় জনগোষ্ঠী; ঠিক একই ভাবে ছিলেন আওয়ামী লীগের ভেতরে ঘাপটি মেরে থাকা আরেক দল পঞ্চম বাহিনী। আওয়ামী লীগ কখনো একটি বিপ্লবী দল ছিল না। এটিকে বড় জোর বলা যায় পাতি বুর্জোয়া মধ্যবিত্ত শ্রেণির একটি মধ্য বামপন্থী দল আর এই দলে যাঁরাই শুরু থেকে নেতৃত্বে ছিলেন, তাঁদের বেশির ভাগের চরিত্রও তাই ছিল। তবে এটি সত্য,...

ফিরে দেখা,মহৎ আদর্শ ও দর্শনের মৃত্যু নেই

আগস্ট ১৬, ২০১৪

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সম্পর্কে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নীতি ছিল তাকে জীবিত রাখতে হবে। মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী হেনরি কিসিঞ্জার বলেন, 'জীবিত মুজিবের চেয়ে মৃত মুজিব হবে আরও ভয়ঙ্কর'_ কথাটি বিশেল্গষণ করলে এই তাৎপর্য বেরিয়ে আসে যে, সশস্ত্র জাতীয়তাবাদী আন্দোলন যা মুজিব শুরু করেছিলেন তার অবর্তমানে গোটা পরিস্থিতি পাল্টে যাবে এবং ঘটনার ছকে সশস্ত্র বামদিকে মোড় নেবে। সে জন্য রাজনীতির মধ্যপন্থি, গণতান্ত্রিক এবং ভারসাম্যমূলক একটি অবস্থা বজায় রাখতে হলে শেখ মুজিবকে কোনোভাবেই ফাঁসি বা হত্যা করা যাবে না। প্রয়োজনে তাকে রাজনৈতিক সমাধানের সূত্র হিসেবে ট্রামকার্ড হিসেবে ব্যবহার করার কৌশল গ্রহণ করেছিলেন। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কাছে রাজনৈতিক সমাধানের অর্থ ছিল অখণ্ড পাকিস্তানের আওতায় কনফেডারেশন গঠন। কিন্তু ভারতের প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধী কর্তৃক প্রেসিডেন্ট...

অবিরল অশ্রুঝরা দিন আজ সেই দিন, বাংলার ইতিহাসে অবিরল অশ্রুঝরা দিন।

আগস্ট ১৬, ২০১৪

সৈয়দ শামসুল হক আজ সেই দিন, বাংলার ইতিহাসে অবিরল অশ্রুঝরা দিন। এই জাতি এই দেশের স্বপ্নমূলে নির্মম কুঠার হেনে বাংলা ও বাঙালির চিরবিরোধীরা পিতাকে ছেদন করে পঁচাত্তরের পনেরোই আগস্ট এই দিনটিতে। সময় প্রবহমান; এই দেশ এই জাতি সেই থেকে বিপুল এক অশ্রুবারিধিতে ভাসমান। বাঙালি পিতৃহারা হয় এই দিনটিতে; তিনিই সেই পিতা যিনি বাঙালির হাজার বছরের স্বাধীনতার স্বপ্নবীজটিকে লালন করে রোপণ করেন সবুজ এ মাটিতে, ফলবান করে তোলেন একাত্তরের ছাবি্বশে মার্চে তাঁর দৃপ্ত সেই ঘোষণায়- আজ থেকে বাংলাদেশ স্বাধীন। যাও, যুদ্ধে যাও, মাতৃভূমিকে মুক্ত করো। অবিরল অশ্রুঝরা দিন বাংলাদেশের স্থপতি পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। তাঁর নাম বাঙালির ইতিহাসে ও প্রকৃত বাঙালি প্রতিটি মানুষের অন্তরে সোনার অক্ষরে লিখিত হয়ে আছে। বাংলাদেশের হৃদয়-গভীর শ্যামল একটি গ্রাম টুঙ্গিপাড়া থেকে উত্থিত হন তিনি,...

পনেরো আগস্ট ॥ শোকোত্তর চেতনার পটভূমি

আগস্ট ১৬, ২০১৪

আবদুল লতিফ সিদ্দিকী -দৈনিক জনকণ্ঠ মানবদেহের অঙ্গবিশেষে অপঘাতজনিত ক্ষতি পুষিয়ে নেয়ার জন্য একটা জৈবপদ্ধতি প্রাকৃতিকভাবে কার্যকর হয়ে তাকে স্বাভাবিক কাজের যোগ্য করে তোলে। ব্যান্ডেজ করা ক্ষতস্থান চোখের আড়ালে ড্যামেজ কীভাবে রিপেয়ার করে তার কোন ডাক্তারী ব্যাখ্যা না জেনেও উপশমের আনন্দ আমরা অনুভব করতে পারি। দৃশ্যের হাজিরা থেকে বস্তুগত গুরুত্বের সংবেদ অভিন্ন না হলেও মানসিক আঘাতের ক্ষেত্রেও অনুরূপ প্রক্রিয়া ক্রিয়াশীল। কিন্তু ব্যক্তিবেদনার চেয়ে জাতিগত সামষ্টিক বেদনার আলাদা মাত্রা থাকে, কেননা জাতিগত বেদনার সঙ্গে আদর্শবোধের যোগ না থেকে পারে না। সে কারণে জাতিক অপঘাতকালের ধারায় প্রশমিত হয়ে তার অন্তর্গত চেতনার অভিঘাতকে নিঃশেষিত করে না। শোকোত্তরকালে শোক-শক্তির মধ্যে যোগসূত্র গড়ে ওঠে। তবু তার অন্তর্নিহিত গভীরতর তাৎপর্যের রেশ থেকে যায় এবং নতুন প্রকর্ষের...

শেখ মুজিব আমার পিতা

আগস্ট ১৬, ২০১৪

শেখ হাসিনা বাইগার নদীর তীর ঘেঁষে ছবির মতো সাজানো সুন্দর একটা গ্রাম। সে গ্রামটির নাম টুঙ্গিপাড়া। বাইগার নদী এঁকে-বেঁকে গিয়ে মিশেছে মধুমতী নদীতে। এই মধুমতী নদীর অসংখ্য শাখা নদীর একটা হলো বাইগার নদী। নদীর দু’পাশে তাল, তমাল ও হিজল গাছের সবুজ সমারোহ। ভাটিয়ালী গানের সুর ভেসে আসে হালধরা মাঝির কণ্ঠ থেকে, পাখির গান আর নদীর কলকল ধ্বনি এক অপূর্ব মনোরম পরিবেশ গড়ে তোলে। প্রায় ২০০ বছর পূর্বে মধুমতী নদী এ গ্রাম ঘেঁষে বয়ে যেত। এই নদীর তীর ঘেঁষেই গড়ে উঠেছিল জনবসতি। প্রকৃতির অমোঘ নিয়মে ধীরে ধীরে নদীটি দূরে সরে যায়। চর জেগে ওঠে আরও অনেক গ্রাম। সেই ২০০ বছর আগে ইসলাম ধর্ম প্রচারের দায়িত্ব নিয়েই আমাদের পূর্ব-পুরুষরা এসে এই নদীবিধৌত প্রাকৃতিক সৌন্দর্য ও সুষমামণ্ডিত ছোট্ট গ্রামটিতে তাদের বসতি গড়ে তোলে এবং তাদের ব্যবসা-বাণিজ্য ছিল কলকাতা বন্দরকে কেন্দ্র করে। অনাবাদী জমিজমা...

শহীদ বেগম মুজিবের অপ্রকাশিত একটি সাক্ষাতকার ‘পাক মিলিটারিরা বাসা ঘেরাও করে গুলি চালাতে শুরু করে’

আগস্ট ১৪, ২০১৪

ত্রিপুরার চিত্র সাংবাদিক রবীন সেনগুপ্ত। মুক্তিযুদ্ধের সময় তিনি মুক্তিযুদ্ধ সংশ্লিষ্ট অনেক ছবি তুলেছেন। ঢাকা থেকে ঐ সময় তোলা তার আলোকচিত্রের একটি সংকলনও প্রকাশিত হয়েছে, যার নাম ‘চিত্র-সাংবাদিকের ক্যামেরায় মুক্তিযুদ্ধ।’ মুক্তিযুদ্ধে অবদান রাখার জন্য বাংলাদেশ সরকার তাকে মুক্তিযুদ্ধ সম্মাননা প্রদান করে। গত মাসে গবেষণার কাজে আমি ত্রিপুরা গিয়েছিলাম। সেখানে শ্রী সেনগুপ্তের সঙ্গে দেখা করি। সাগ্রহে তিনি আমাকে গ্রহণ করেন এবং ঐ সময় বেগম ফজিলাতুন্নেসার তোলা একটি ছবি স্বাক্ষর করে আমাকে উপহার দেন যা এখানে ছাপা হলো। রবীন সেনগুপ্ত জানিয়েছেন, বিজয়ের পর যে কজন সাংবাদিক মুক্ত বেগম মুজিবের সঙ্গে সাক্ষাত করেন ও কথাবার্তা বলেন তাদের মধ্যে ছিলেন ত্রিপুরার ভূপেন চন্দ্র ভৌমিক, অনিল ভট্টাচার্য এবং তিনি নিজে। ছোট একটি সাক্ষাতকার বেগম মুজিব দিয়েছিলেন। তার একটি...